শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী রমজানে স্বপ্নবাজ‘র উদ্যোগে দোয়া মুখস্থ ও জ্ঞানার্জন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ লন্ডনে প্রবাসীদের সাথে ঈদ উদযাপন প্রতিমন্ত্রী দারার যদুনাথ রি-ইউনিয়ন ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২৪ সিজন-৪ অনুষ্ঠিত রাজশাহীর বাঘায় চলছে প্রকাশ্যে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি সারিয়াকান্দিতে আগুনে পুড়ে ছাই কৃষকের গোয়ালঘর ও গবাদি পশু : ৪ লক্ষ টাকার ক্ষতি সারিয়াকান্দিতে আগুনে পুড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী লিখন মিয়া আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে জনগণকে দিতে,আর বিএনপি আসে নিতে : প্রধানমন্ত্রী সচ্ছল ব্যক্তিদেরকে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান রাষ্ট্রপতির ঈদের দিনে উপচে পড়া ভিড় সারিয়াকান্দির পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবসে এমপি শফিকুর রহমানের বাণী

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২৪ উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান বাদশা।

বাণীতে এমপি শফিকুর রহমান বলেন, আগামীকাল রোববার (১৭ মার্চ) সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শুভ জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস।এই শুভ দিনে আমি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি।

সাংসদ বলেন, বাংলার রাখাল রাজা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জের নিভৃত গ্রাম টুঙ্গীপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন।প্রত্যন্ত অঞ্চলে জন্ম নেওয়া শেখ মুজিবুর রহমান দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলেন।দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পথ পেরিয়ে শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতার মহান স্থপতি ও বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের মুক্তি-সংগ্রামের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে ওঠেন।পরাধীন ভারতে জন্ম নেয়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শৈশব থেকেই জমিদার, তালুকদার ও মহাজনদের অত্যাচার, শোষণ ও নির্যাতন দেখেছেন। মানুষের দুঃখ, কষ্ট দেখে তাদের মুক্তির সংগ্রামে ছাত্রজীবন থেকেই তিনি নিজের জীবনকে উৎসর্গ করেছিলেন।

১৯৪৬ সালে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় শান্তি স্থাপন, ’৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ’৫৪ এর যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ’৫৮ এর সামরিক শাসনবিরোধী আন্দোলন, ’৬৬ এর ৬ দফা, ’৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান, ’৭০ এর নির্বাচনসহ বাঙালির মুক্তি ও অধিকার আদায়ের প্রতিটি গণতান্ত্রিক ও স্বাধীকার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন বঙ্গবন্ধু।’৭১ এর ৭ মার্চ তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে বিশাল জনসমুদ্রের সামনে ঐতিহাসিক ভাষণ দেন বঙ্গবন্ধু।ঐতিহাসিক ভাষণটি ছিল বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ।বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দীর্ঘ নয়মাস সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা অর্জন করি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু তার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার কাজ শুরু করেন।কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে শহীদ করা হয়।বাঙালি জাতির স্বপ্নদ্রোষ্টা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ বির্নিমানে তারই কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিবেদিত প্রাণ হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেম, সততা ও নিষ্ঠাবোধ জাগ্রত করার মধ্য দিয়ে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।বঙ্গবন্ধুর সমৃদ্ধ জীবনী আমাদের জন্য অনুপ্রেরণা ও অনুকরণীয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x