বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০১:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজশাহী বিভাগের ১৯ উপজেলার চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণ দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে রাসিকের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত ‘প্রধানমন্ত্রী ঘর দিছে,বৃষ্টির দিনেও শান্তিতে থাকতে পারমু’ বর্তমান কমিটিকে অবৈধ ঘোষণা করে আওয়ামী আইনজীবীদের আহ্বায়ক কমিটি গঠন পবায় সংবাদ প্রকাশের পরেও থামছেনা পুকুর খননের মাটি বিক্রি সারিয়াকান্দিতে ভূমিসেবা সপ্তাহে বির্তক,কুইজ প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ লফস এর আয়োজনে উম্মুক্ত স্থানের বাজেট বরাদ্দ ও গাইড লাইন শীর্ষক আলোচনা সভা সারিয়াকান্দিতে ওয়ার্ড কমিটির সমন্বয় (wc) সভা অনুষ্ঠিত সারিয়াকান্দিতে ওয়ার্ড কমিটির সমন্বয় (wc) সভা অনুষ্ঠিত আসামীর বোনের বিরুদ্ধে মামলার বাদীকে হত্যার চেষ্টা,থানায় অভিযোগ
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

সারিয়াকান্দিতে জিপিএ-৫ পেয়েও অর্থের অভাবে কলেজে ভর্তি অনিশ্চিত সাকিবুল হাসানের

পাভেল মিয়া, বগুড়া জেলা প্রতিনিধি: বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার হাটশেরপুর ইউনিয়নের হাসনাপাড়া গ্রামের দিনমজুর মোঃ হেলাল মাহমুদের ছেলে সাকিবুল হাসান। মাতা মৃত মোছাঃ রেহেনা আকতার। দুই ভাইয়ের মধ্যে এক ভাই ক্লাস সেভেনে পড়াশুনা করে। এবার এসএসসিতে ১৩শ নম্বরের মধ্যে ১২৫৭ নম্বর পেয়েছেন অর্থাৎ জিপিএ-৫ পেয়েও ভালো কলেজে ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে সাকিবুল হাসানের। ছেলের ভবিষ্যৎ শিক্ষার খরচ কীভাবে যোগাবেন এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় তার পরিবার। সোহানের বয়স যখন ৫ বছর তখন তার মা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ জনিত কারণে মারা যান। অভাব-অনটনের মধ্যে উপজেলার খোর্দ্দ বলাইল উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে সাকিবুল হাসান এবার এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ায় খুশি হয়েছেন পরিবারসহ স্কুলের শিক্ষক ও প্রতিবেশীরা। তবে অর্থাভাবে সেই আনন্দ এখন বিষাদে পরিণত হচ্ছে তার।

জানা গেছে,চাষাবাদ করার মতো কোন জমি না থাকা ছোট্র একটি মুদির দোকান দিয়ে কোনোমতে পরিবারের জীবিকা নির্বাহের চেষ্টা করে যাচ্ছেন তার বাবা। অভাবের এ সংসারে শিক্ষক ও আত্মীয়দের সহযোগিতায় কষ্ট করে পড়াশোনা করেছে সাকিবুল হাসান। একটি টিনের ঘর ছাড়া সম্বল বলতে আর কিছুই নেই তাদের। অর্থাভাবে সাকিবুল হাসান কলেজে ভর্তি হওয়াই এখন অনিশ্চিত।
এ বিষয়ে সাকিবুল হাসান বলেন,বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক স্যারসহ সকল শিক্ষক আমাকে অনেক সহযোগিতা করছেন। বিনামূল্য আমাকে পড়াশুনার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। সেজন্য আমি আজ জিপিএ-৫ পেয়েছি। আমার বাবা ছোট্র একটি মুদির দোকানের সামান্য উপার্জন তাতে আমাদের সংসার ভালোভাবে চলে না। আমার বাবার পক্ষে আমাকে কলেজে ভর্তি করা সম্ভব না। এখন দুশ্চিন্তায় ভুগছি বাবা কীভাবে ভালো কলেজে ভর্তি করবেন। আমি আরও পড়তে চাই। আমার স্বপ্ন বুয়েটে ইঞ্জিনিয়ার হবে। কিন্তু কলেজে ভর্তি ও পড়ার খরচ জোগানোর সামর্থ্য আমাদের নেই।
খোর্দ্দ বলাইল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাফি বলেন,ইসমাইল একজন মেধাবী ছাত্র। তার পরিবারের আর্থিক সামর্থ্যের কথা বিবেচনা করে তাকে বিনাবেতনে পড়ার সুযোগ দিয়েছিলাম। গরিব পরিবারের সন্তান হয়েও ভালো রেজাল্ট করে এখন অর্থের অভাবে ভালো কলেজে ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে তার। তাই এমন মেধাবীদের লালন করতে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।
সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. তৌহিদুর রহমান বলেন,সোহানকে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে উপজেলা প্রশাসন থেকে যতটুকু সম্ভব সহযোগিতা প্রদান করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 − 7 =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x