ঢাকা ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'যমুনা প্রতিদিন ডট কম' এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।

সিরাজগঞ্জে স্কুলছাত্রের লাশ মিলল সেচপাম্প ঘরে

মোঃ দিল,সিরাজগঞ্জঃ
  • আপডেট সময় : ০৯:৪০:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৩ ৪৭ বার পড়া হয়েছে
যমুনা প্রতিদিন অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) সকালে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার রতনকান্দি ইউনিয়নের গজারিয়া উত্তরপাড়া সেচ পাম্প ঘরের আবু বক্কর ওরফে আনন্দ (১২) নামের এক স্কুল ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত আবু বক্কার আনন্দ গজারিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ও চর চিলগাছা উচ্চবিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র।

নিহত স্কুল ছাত্রের বাবা রফিকুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে ওয়াজ মাহফিলে যাওয়ার কথা বলে তার বন্ধু ডেকে নিয়ে যায়। এরপর সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি।আজ সকালে আমার ভাড়া নেওয়া সেচ পাম্প ঘরের মধ্যে মরদেহ দেখে স্থানীয় কৃষকরা আমাকে খবর দেয়।

তিনি আরো বলেন, সেচ পাম্পটি আমরা ভাড়া নিয়ে চালাই, এ কারণে ওই সেচ পাম্প ঘরের চাবিটা আমার ছেলে আবু বক্কারের কাছেই থাকতো।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নান্নু খান ও পরিদর্শক (অপারেশন) সুমন কুমার দাস বলেন, মরদেহের সুরুতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করা হচ্ছে। শিশুটির চোখ দিয়ে রক্ত ঝরছে এবং অণ্ডকোষও রক্তাক্ত রয়েছে। আলামত সংগ্রহের জন্য পুলিশের ক্রাইম সিন বিভাগ আসছে। আসার পর মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

সিরাজগঞ্জে স্কুলছাত্রের লাশ মিলল সেচপাম্প ঘরে

আপডেট সময় : ০৯:৪০:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৩

শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) সকালে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার রতনকান্দি ইউনিয়নের গজারিয়া উত্তরপাড়া সেচ পাম্প ঘরের আবু বক্কর ওরফে আনন্দ (১২) নামের এক স্কুল ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত আবু বক্কার আনন্দ গজারিয়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ও চর চিলগাছা উচ্চবিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র।

নিহত স্কুল ছাত্রের বাবা রফিকুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে ওয়াজ মাহফিলে যাওয়ার কথা বলে তার বন্ধু ডেকে নিয়ে যায়। এরপর সে আর বাড়ি ফিরে আসেনি।আজ সকালে আমার ভাড়া নেওয়া সেচ পাম্প ঘরের মধ্যে মরদেহ দেখে স্থানীয় কৃষকরা আমাকে খবর দেয়।

তিনি আরো বলেন, সেচ পাম্পটি আমরা ভাড়া নিয়ে চালাই, এ কারণে ওই সেচ পাম্প ঘরের চাবিটা আমার ছেলে আবু বক্কারের কাছেই থাকতো।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নান্নু খান ও পরিদর্শক (অপারেশন) সুমন কুমার দাস বলেন, মরদেহের সুরুতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত করা হচ্ছে। শিশুটির চোখ দিয়ে রক্ত ঝরছে এবং অণ্ডকোষও রক্তাক্ত রয়েছে। আলামত সংগ্রহের জন্য পুলিশের ক্রাইম সিন বিভাগ আসছে। আসার পর মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হবে।