ঢাকা ০৪:৫৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'যমুনা প্রতিদিন ডট কম' এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।
সংবাদ শিরোনাম :
রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন আহমেদ ও কবির বিন আনোয়ারকে সংবর্ধনা রাজশাহীতে চিত্রশিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদের নামে আর্ট গ্যালারি করা হবে : রাসিক মেয়র ভারতের প্রমোদতরী ‘গঙ্গা বিলাস’ সুন্দরবনে ৫৯ বিজিবি কর্তৃক শিয়ালমারা ও আজমতপুর সীমান্তে বিদেশী মদ ও ফেন্সিডিল আটক রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুরি হওয়া মেশিন উদ্ধার,আটক ৪ মোরেলগঞ্জে স্হানীয় সাংসদের পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র বিতরণ সৈয়দ নজরুল ইসলামের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ৩২ হাজার কম্বল বিতরণ পাইকগাছা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পদ্মায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ট্রাক্টর মালিকের জেল

নন্দীগ্রামের কৃষিতে প্রথমবারের মতো যুক্ত হলো মালচিং পদ্ধতিতে স্ট্রবেরী চাষ

নন্দীগ্রাম(বগুড়া)প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ০৭:২৫:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ ৬৮ বার পড়া হয়েছে
যমুনা প্রতিদিন অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ধান প্রধান এলাকা হলেও নন্দীগ্রামের কৃষিতে এখন যুক্ত হচ্ছে নিত্য নতুন ফল ও ফসল।এরই ধারাবাহিকতায় এবার যোগ হলো স্ট্রবেরী।স্ট্রবেরী শীত প্রধান দেশের ফসল হলেও বাংলাদেশে বেশ কয়েক বছর আগে অল্প অল্প করে এর যাত্রা শুরু হয়।

উচ্চ মূল্যের ফসল হওয়ায় নন্দীগ্রামের চাকলমা গ্রামের শিক্ষিত তরুণ কৃষি উদ্যোক্তা মোঃ জাব্বির হোসেন স্ট্রবেরী চাষে মনোযোগী হয়েছেন।

আরডি এডিপি প্রকল্পের আওতায় কৃষি বিভাগের সার্বিক সহযোগিতায় পঁচিশ শতক জমিতে প্রদর্শনী আকারে শুরু করলেও এর পাশাপাশি আরো সাড়ে তিন বিঘা মিলিয়ে মোট চার বিঘা জমিতে তিনি চাষ শুরু করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লাইনের পর লাইন মালচিং শিট বিছিয়ে লাগানো হয়েছে স্ট্ররেরী চারা গুলো। আলু সরিষার জমির মাঝে এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ স্ট্রবেরী।

জাব্বির হোসেন জানান, কৃষি বিভাগের সার্বিক পরামর্শ এবং সহযোগিতায় আমি স্ট্রবেরী চাষ শুরু করেছি। চারার বয়স এখন প্রায় এক মাস। প্রতিটি চারার দাম পড়েছে বিশ টাকা। মোট সতের হাজার চারা রয়েছে। ফলসংগ্রহ পর্যন্ত প্রতিটি চারার পেছনে গড়ে খরচ পড়বে ৬০-৬৫ টাকা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে প্রতিটি গাছ থেকে গড়ে ৪০০-৫০০ গ্রাম ফল পাওয়া যাবে। বাজার মূল্য ভাল পেলে এখান থেকে কয়েক লক্ষ টাকা লাভের আশা করছি।

উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আদনান বাবু জানান, স্ট্রবেরী অত্যন্ত পুুষ্টিমান সমৃদ্ধ একটি ফল।এতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এবং মিনারেলস আছে।এটি উচ্চ মূল্যের একটি ফসল। বাজার মূল্য নিশ্চিত করতে পারলে স্ট্রবেরী চাষে দারুণ সম্ভাবনা আছে। নন্দীগ্রামের কৃষির ইতিহাসে এবারই প্রথম আরডি এডিপি প্রকল্পের আওতায় স্ট্রবেরী চাষের যাত্রা শুরু হয়েছে।এর পাশাপাশি কৃষি উদ্যোক্তা মোঃ জাব্বির হোসেন উদ্যোগী হয়ে মোট চার বিঘা জমিতে এটি চাষ করেছেন। ফসলের সার্বিক অবস্থা এখন পর্যন্ত বেশ ভালো।কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে স্ট্রবেরী চাষে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।আগামীদিনে নন্দীগ্রামের কৃষিতে স্ট্রবেরী হতে পারে একটি অনন্য ফসল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

নন্দীগ্রামের কৃষিতে প্রথমবারের মতো যুক্ত হলো মালচিং পদ্ধতিতে স্ট্রবেরী চাষ

আপডেট সময় : ০৭:২৫:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

ধান প্রধান এলাকা হলেও নন্দীগ্রামের কৃষিতে এখন যুক্ত হচ্ছে নিত্য নতুন ফল ও ফসল।এরই ধারাবাহিকতায় এবার যোগ হলো স্ট্রবেরী।স্ট্রবেরী শীত প্রধান দেশের ফসল হলেও বাংলাদেশে বেশ কয়েক বছর আগে অল্প অল্প করে এর যাত্রা শুরু হয়।

উচ্চ মূল্যের ফসল হওয়ায় নন্দীগ্রামের চাকলমা গ্রামের শিক্ষিত তরুণ কৃষি উদ্যোক্তা মোঃ জাব্বির হোসেন স্ট্রবেরী চাষে মনোযোগী হয়েছেন।

আরডি এডিপি প্রকল্পের আওতায় কৃষি বিভাগের সার্বিক সহযোগিতায় পঁচিশ শতক জমিতে প্রদর্শনী আকারে শুরু করলেও এর পাশাপাশি আরো সাড়ে তিন বিঘা মিলিয়ে মোট চার বিঘা জমিতে তিনি চাষ শুরু করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লাইনের পর লাইন মালচিং শিট বিছিয়ে লাগানো হয়েছে স্ট্ররেরী চারা গুলো। আলু সরিষার জমির মাঝে এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ স্ট্রবেরী।

জাব্বির হোসেন জানান, কৃষি বিভাগের সার্বিক পরামর্শ এবং সহযোগিতায় আমি স্ট্রবেরী চাষ শুরু করেছি। চারার বয়স এখন প্রায় এক মাস। প্রতিটি চারার দাম পড়েছে বিশ টাকা। মোট সতের হাজার চারা রয়েছে। ফলসংগ্রহ পর্যন্ত প্রতিটি চারার পেছনে গড়ে খরচ পড়বে ৬০-৬৫ টাকা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে প্রতিটি গাছ থেকে গড়ে ৪০০-৫০০ গ্রাম ফল পাওয়া যাবে। বাজার মূল্য ভাল পেলে এখান থেকে কয়েক লক্ষ টাকা লাভের আশা করছি।

উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আদনান বাবু জানান, স্ট্রবেরী অত্যন্ত পুুষ্টিমান সমৃদ্ধ একটি ফল।এতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এবং মিনারেলস আছে।এটি উচ্চ মূল্যের একটি ফসল। বাজার মূল্য নিশ্চিত করতে পারলে স্ট্রবেরী চাষে দারুণ সম্ভাবনা আছে। নন্দীগ্রামের কৃষির ইতিহাসে এবারই প্রথম আরডি এডিপি প্রকল্পের আওতায় স্ট্রবেরী চাষের যাত্রা শুরু হয়েছে।এর পাশাপাশি কৃষি উদ্যোক্তা মোঃ জাব্বির হোসেন উদ্যোগী হয়ে মোট চার বিঘা জমিতে এটি চাষ করেছেন। ফসলের সার্বিক অবস্থা এখন পর্যন্ত বেশ ভালো।কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে স্ট্রবেরী চাষে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।আগামীদিনে নন্দীগ্রামের কৃষিতে স্ট্রবেরী হতে পারে একটি অনন্য ফসল।