শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ১০:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজশাহী মহানগরীর সিটি সেন্টার কাজের অগ্রগতি নিয়ে সভা অনুষ্ঠিত আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলা পরিষদে বসলেন নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান বকুল শাহজাদপুরে মদের দোকান বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন রাজশাহীতে বিয়ের এক মাসের মাথায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু,থানায় মামলা স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে বাংলাদেশ স্কাউটস হবে আলোকবর্তিকা : এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী রাজশাহী মহানগর বিএনপির ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা বগুড়ার খামারকান্দী সূর্য সন্তান ক্লাবের আয়োজনে ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত বগুড়ায় শিশু তামিম হত্যার মূল রহস্য উদঘাটন,গ্রেফতার-১ রাজশাহীর সাথে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রাজশাহীতে মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

গল্প : হিংসুটে বুড়ো

কলমে : নুর ই আল শাহাত চৌধুরী

অনেক দিন আগের কথা।এক গ্রামে ছিল এক বুড়ো।বুড়োর সবাই ভালো ছিল কিন্তু কানের পাশে একটা আব ছিল।তাই বুড়োর মনে খুব কষ্ট।একদিন বুড়ো কাট কাটতে গেল একটা বনে।কাট কাটতে কাটতে বেলা চলে গেল।এমন সময় শুরু হয় প্রচন্দ বৃষ্টি।ধীরে ধীরে রাত ঘনিয়ে এলো।বুড়ো ভাবল এই বৃষ্টিতে বাড়ি ফিরার যাবে না।তাই সে জঙ্গলের ভিতরে আশ্রয় খুঁজে নিল।বনের ভিতর একটা কাঠুরের ঘর ছিল।কিন্তু বুড়ো সেটা খুঁজে পেলো না।অবশেষে একটা বটগাছ এর নিচে দাঁড়িয়ে রইল।পরে একটা গাছের নিচে গর্ত খুঁজে পেলো বুড়ো সেখানে ঢুকে পরল।

কিছুক্ষণ পর বৃষ্টি থামল রাত প্রায় ২.৫০ মিনিট।রাত তিনটার দিকে এক দল ভুত এসে তার খোলে ও হারমেনিয়াম বাজাচ্ছে।বুড়ো ভয়ে ঠকঠক করতে লাগলো।চোখে ঘুম নেই লম্বা নাক ওয়ালা ভূতের রবীন্দ্র নাচ শুরু করল।বূড়ো দেখতে দেখতে আর ঠিক থাকতে থাকতে পারল না।সেও ভূতের সাথে সাথে নাচ শুরু করল।বূড়ো রবীন্দ্র নাচ ভালো জানতো।ভূতেরা নাচতে নাচতে সবাই থেমে গেল কিন্তু বূড়োর নাচ থামছে না।।ভুতের রাজা দেখল বুড়ো ভালো নাচতে পারে।ভুতের রাজা বলল এই বুড়োর নাচ খুব ভালো লাগলো কাল কেউ এই বুড়োর নাচ দেখতে চাই।বুড়কে বলল কালকে এসো কেমন।অন্য একটা ভুত বলল সে যদি কাল না আসে।রাজা বলল, তা ঠিক।তাহলে তার কাজ থেকে একটি জিনিস নিয়ে রাখ।কি নিয়ে রাখা যায় ভুত ভাবতে লাগল।তখন ভুত দেখতে পেল তার কানের পাশে একটা আব ছিল।ভুত সেই আব টা নিয়ে নিল।তার আব টা এমন ভাবে নিয়ে নিল বুড়ো টের এ পায়নি।

বুড়ো মনে মনে ভাবছে সে কি স্বপ্ন দেখছে না আসলে স্মৃতি কথা।বুড়ো তার হাত দিয়ে ওখানে নারে দেখে সত্যি তার আব নেই।ভোর হতে লাগল ভূতেরা সবাই চলে গেল। বুড়ো বাড়ি চলে আসল।খুশি মনে বাড়ি ফিরে এসে তার বউকে সব কথা বলল।

এই গ্রামের পাশে আরো একটা বুড়োর কানে আব ছিল।একথা শূনে সেই বুড়োর খুব হিংসা হতে লাগলো।আহা ভুতেরা যদি আমার আব টা নিত। তাহলে লোকেরা আর হাসি ঠাট্টা করতো না।সে মনে মনে সিদ্ধান্ত নিল আজকে ও নিজে যাবে।যেভাবে হোক বুড়োকে মেতে দিবে না।মনের ভাব মনে রেখে সে বুড়োর কাছে গিয়ে বলল, ভুতের গতিপতি ঠিক না, যদি কোন বিপদ আসে।কি দরকার ঝামলার মধ্যে যাবার।গতরাতে ঘুম হয়নি আজ ঘুমে যাও ।

তারপর সন্ধ্যা হতেই লোকটি চলে গেল জঙ্গলে গিয়ে আগের রাতে বুড়ো যে আম গাছটার নিচে দাঁড়িয়ে ছিল সেখানে গিয়ে সে আছে। সেইদিন ও গভীর রাতে একদল ভুত এলো। বুমেরাং এসে গাছের চারা পাশে রবীন্দ্র নাচ শুরু করল।লোকটিও তাদের সাথে নাচতে শুরু করল ।কিন্তু এই বুড়োটা রবীন্দ্র নাচ জানতো না।নাচের তালে বারবার ভুল করতেছে। নাচের তালে কেটে যাচ্ছে বলে ভূতেরা রাগ হলো

ভুতের রাজা বলল, আগের রাতে তুমি কত ভালো নাচলে আজকে আমাদের কে ফাঁকি দিচ্ছ।তুমি খুব খারাপ লোক।ভূতের রাজা বলল, কালকে মে এর আব টা নিয়েছি সেটা দিয়ে দেও।আমরা এর নাচ দেখবো না।রাজার হুকুম পাওয়ার সাথে সাথে তার কানের নিচে বাটি বসে দিল।তার কানের নিচে আগে থেকে একটা আব ছিল এখন থেকে দুইটি আব হলো। আর হিংসুটে বুড়ো মত দিন বেঁচে ছিল তার দুই টি আব ছিল।হিংসুটে লোকদের এভাবে শাস্তি হয়


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × one =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com