শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৯:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজশাহী মহানগরীর সিটি সেন্টার কাজের অগ্রগতি নিয়ে সভা অনুষ্ঠিত আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলা পরিষদে বসলেন নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান বকুল শাহজাদপুরে মদের দোকান বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন রাজশাহীতে বিয়ের এক মাসের মাথায় গৃহবধূর মৃত্যু,থানায় মামলা স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে বাংলাদেশ স্কাউটস হবে আলোকবর্তিকা : এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী রাজশাহী মহানগর বিএনপির ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি ঘোষণা বগুড়ার খামারকান্দী সূর্য সন্তান ক্লাবের আয়োজনে ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত বগুড়ায় শিশু তামিম হত্যার মূল রহস্য উদঘাটন,গ্রেফতার-১ রাজশাহীর সাথে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রাজশাহীতে মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

নির্ধারিত তারিখের আগেই বাউসা ইউনিয়নে মিলছে ওয়ারিশ সনদ,চেয়ারম্যান না থাকলেও দেওয়া হয়েছে সাক্ষর

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন পরিষদে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ পরিষদে অনুপস্থিত, এরপরেও ওয়ারিশান সনদে পরিলক্ষিত হচ্ছে চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর।এছাড়াও হাতে লেখা ওই সনদে ১০/০৭/২০২৪ ইং তারিখ উল্লেখ করে মঙ্গলবার ৯ জুলাই তা বিতরণ করা হয়েছে।

জানা যায়, তেঁথুলিয়া শিকদার পাড়া গ্রামের মৃত আমিরন নেসা বিবি, পিতা: মৃত ইয়াজ উদ্দিন, মাতা: মৃত ছমিরন বিবি।তার তিন কন্যা আম্বিয়া বেগম, রিজিয়া বেগম ও রাজিয়া বেগম কে ওয়ারিশ করে এ সনদ দেওয়া হয়।উক্ত সনদে অনুমোদনকারীর সীলমোহর ও সাক্ষর ব্যাবহার করা হয়েছে চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদের।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুলের মৃত্যুর পরের দিন ২৭ জুন থেকে বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ তুফান অনুপস্থিত।তিনি দীর্ঘ ১৩ দিন যাবৎ পরিষদে অনুপস্থিত থাকায় ভোগান্তিতে পড়ছে সেবা নিতে আসা সাধারণ জনগন।বিশেষ করে বিভিন্ন সনদে চেয়ারম্যানের সাক্ষর না পাওয়ায় ব্যাপক ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে হঠাৎ করে চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে হাতে লেখা ওয়ারিশন সনদে তার সাক্ষর জনমনে অনেক প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

এ বিষয়ে আম্বিয়া বেগমের ছেলে নাসির উদ্দিন জানান, বাউসা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুর রহমান হাতে লিখে  ওয়ারিশান সনদ দিয়েছে।তাতে অগ্রীম ৯ তারিখের স্থলে ১০ তারিখ ব্যাবহার করা হয়েছে।

৯নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুর রহমান জানান, চেয়ারম্যান না থাকায় জনগন অসুবিধায় পড়েছে।আগে থেকেই চেয়ারম্যান সাক্ষরিত সনদের কপি আমার কাছে ছিল, তাই আমার ওয়ার্ডের জনগনের সুবিধার্থে আমি এ সনদ প্রদান করেছি।

পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ মহাসিন আলী বলেন, চেয়ারম্যান না থাকায় বিশেষ করে জনগন সাক্ষরজনিত সমস্যায় পড়েছে।তবে আমি শুধুমাত্র প্রত্যয়ন পত্রে সাক্ষর করছি।

এ বিষয়ে মুঠোফোনে বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব রফি আহমেদ বলেন, এই ওয়ারিশান সনদ প্রদান সম্পর্কে আমার কিছুই জানা নেই।চেয়ারম্যানের অনুপস্থিত থাকা সহ সকল বিষয়ে জানতে মুঠোফোনে একাধিকবার নূর মোহাম্মদ তুফান কে কল দিলে তিনি রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, চেয়ারম্যান থাকায় একদিকে ভোগান্তিতে পড়ছে সাধারণ জনগন, অন্যদিকে পরিষদের আঙ্গিনা অরক্ষিত অবস্থায় ব্যাবহার হচ্ছে কৃষি কাজে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × four =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com