মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০১:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রাজশাহীর ১৪০০ খতিব,ইমাম,মুয়াজ্জিন ও হাফেজদের ঈদ শুভেচ্ছা ভাতা দিলেন রাসিক মেয়র সকলকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন মাসুম বিল্লাল ফারদি নতুন নাটকে অভিনেত্রী নূপুর রাজশাহীতে সাংবাদিককে সামাজিক মাধ্যমে লাগাতার হুমকি রাজশাহীর বাঘায় আম বোঝায় ট্রাক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে দোকানে ধাক্কা : আহত ২ সারিয়াকান্দি পৌরসভায় ঈদ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঈদ উপহার পেলেন ১৫শ’৪০টি পরিবার নবনির্বাচিত ভাইস-চেয়ারম্যান পপি’র বিরুদ্ধে অপপ্রচার বির্তকিত সাংবাদিক রফিকের রোষানলে সাংবাদিক কাজী শাহেদ,মিথ্যাচারের প্রতিবাদ রাজশাহী বিভাগের ১৯ উপজেলার চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণ দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে রাসিকের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

গভীর রাতে শীতার্তদের গায়ে কম্বল জড়িয়ে দিলেন ইউএনও তৌহিদুর রহমান

পাভেল মিয়া,সারিয়াকান্দি (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়া সারিয়াকান্দিতে রাতের আঁধারে বাড়ি বাড়ি ঘুরে কম্বল দিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো.তৌহিদুর রহমান।সারিয়াকান্দি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের এলাকা, ফুটপাতে থাকা ছিন্নমূল মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো.তৌহিদুর রহমান। গতকাল গভীর রাতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের এলাকার কয়েকটি গ্রামে গরীব অসহায় মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো.তৌহিদুর রহমান প্রায় অর্ধশতাধিক বাড়িতে গিয়ে নিজের হাতে কম্বল গায়ে জড়িয়ে দেন শীতার্তদের। রাস্তার পাশে,প্রত্যন্ত গ্রামের প্রকৃত অসহায় ও শীতার্ত মানুষদের খুঁজে খুঁজে কম্বল দেন।
সরেজমিনে দেখা যায়, কনকনে শীতে চরম বিপাকে পড়ছেন বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার গরিব ও অসহায় শীতার্ত মানুষ। গরিব-দুঃখী শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘবে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে শীতার্ত মানুষের বাড়িতে গভীর রাতেও কম্বল নিয়ে হাজির হয়েছেন ইউএনও তৌহিদুর রহমান। কনকনে শীতের মধ্যে হঠাৎ যখন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও তৌহিদুর রহমানের হাতে শীতবস্ত্র দেখে ছিন্নমূল দুঃস্থ, অসহায় ও প্রতিবন্ধীরা আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।
কম্বল পেয়ে লাইলী বেগম নামে এক বৃদ্ধা বলেন, ‘এই শীতে কেউ কোনো খোঁজ না দিলেও ইউএনও স্যার নিজে এসে কম্বল দিয়েছেন। কম্বল পেয়ে আমি অনেক খুশি।’
এ বিষয়ে ইউএনও ইউএনও তৌহিদুর রহমান যমুনা প্রতিদিনকে বলেন, প্রচন্ড শীতে উপজেলাবাসী কষ্ট পাচ্ছে। এই শীতে কোনো দুঃস্থ পরিবার যেন কষ্ট না পায়, সেজন্য তাদের পাশে শীতবস্ত্র নিয়ে দাঁড়িয়েছি। এভাবেই শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ অব্যাহত থাকবে।সবার উচিত এসব অসহায়, দুস্থ ও দরিদ্রদের পাশে এসে দাঁড়ানো।
এ সময় উপজেলা মৎস্য অফিসার উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম মোর্শেদ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সহ উপজেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fifteen + eighteen =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x