বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বিদেশে নেয়ার নাম করে অর্থ আত্মসাৎ,থানায় অভিযোগ বিরামপুরের ৪নং দিওড় ইউনিয়নে ভিডব্লিউবির চাল বিতরণ বিএমএসএফ’র সাংগঠনিক কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বিএসটিআইয়ের অভিযানে মান সনদ না থাকায় ইটভাটা ও রেস্টুরেন্টকে জরিমানা নবাবগঞ্জে জমিজামা সংক্রান্ত কলহে প্রতিপক্ষকে মারপিট ও বাড়ী ভাঙচুর-লুটপাট,থানায় মামলা সারিয়াকান্দিতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত বর্তমান সময়ের সেরা রোমান্টিক জুটি নয়ন-অধরা নাগরপুরে দুই দিনব্যাপী অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধন সারিয়াকান্দিতে যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরামের আহ্বায়ক কমিটি গঠন তিন দিনের বাংলাদেশ সফরে ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

বগুড়ায় চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর নির্মাণ,থানায় অভিযোগ

বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নের বড় ধাওয়াকোলা গ্রামে দীর্ঘ দিনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।এতে পাশের বাড়ির ৫ পরিবারের সদস্যরা গৃহবন্দী দশা হয়ে পড়েছে।এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ভিতর বিবাদমান সংঘর্ষের রূপ দেখা গেছে।

থানায় অভিযোগ ও সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার বড় ধাওয়াকোলা মধ্যপাড়া গ্রামের ভুক্তভোগী, বুলু মিয়ার পুত্র জিল্লুর রহমান, আফছার আলীর পুত্র হারুন অর রশীদ, মজিবর রহমানের কন্যা বিউটি বেগম, বেলালের পুত্র শাহেদ রহমান, আসাদ আলীর পুত্র ইমদাদুল হক।

উল্লেখ্য ৫ পরিবারের সদস্যরা দীর্ঘ ২০ বছরের অধিককাল এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে আসছেন।বর্তমান প্রতিবেশী মোজাহার আলীর পুত্র গোলজার রহমান (৪০) মোজাহার আলীর কন্যা বেদনা বেগম (৪৫) রবিউল ইসলামের পুত্র মোঃ তামিম (২৫) সহ অজ্ঞাত নামা ৩/৪ জন ব্যক্তিরা প্রায় ২ বছর আগে একই ভাবে রাস্তা বাঁশখুটি দ্বারা বন্ধ করে দিয়ে ছিল।এসময় ভুক্তভোগীরা উপায় অন্তর না পেয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, যার নং-৮৬৮/২০২২। আদালতে চলমান আছে।আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় এবং কমিশন প্রতিবেদন ভুক্তভোগীদের পক্ষেই রায় হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় আদালতের আদেশের তোয়াক্কা না করে মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় ওই ৫/৭ পরিবারের চলাচল রাস্তা ভিত্তি স্থাপনে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে।এসময় পিছনের বাসিন্দা জিল্লুর রহমান রাস্তা বন্ধ করে প্রাচীর নির্মাণ করার প্রতিবাদ করলে গোলজার গং তাদের নানা ধরনের হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে পুনরায় প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করেন।এরপর ভুক্তভোগী জিল্লুর রহমান থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।একপর্যায়ে উভয়পক্ষের ভিতর চরম উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।এরপর সদর থানার এএসআই উজ্জ্বল হোসেন ও সঙ্গী এএসআই এরশাদ হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে প্রাথমিক ভাবে কাজ বন্ধ রাখার নিদের্শ দেন।তারা থানায় উভয় পক্ষ কে ডেকে সুরাহা করার আশ্বস্ত করেন।

অপর দিকে ভুক্তভোগী হারুন রশীদ বলেন, আমাদের দীর্ঘ দিনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করায় বাড়ির লোকজন ও স্কুল শিক্ষার্থীরা চলাচলে মারাত্মক সমস্যা পোহাতে হচ্ছে।হাট বাজারে যেতে পারছি না।

এ দিকে সীমানা প্রাচীর নির্মাণকারি গোলজার রহমান জানান, আমরা কারো জায়গা বন্ধ করিনি।নিজেদের ক্রয়কৃত জায়গায় নিজেরা প্রাচীর দিচ্ছি।পাশের অংশিদার এক হাত ছাড় দিলে আমি দুই হাত ছাড় দিবো বলে জানান।এ নিয়ে উভয় পক্ষের ভিতর চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবারগুলো প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ