বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বিদেশে নেয়ার নাম করে অর্থ আত্মসাৎ,থানায় অভিযোগ বিরামপুরের ৪নং দিওড় ইউনিয়নে ভিডব্লিউবির চাল বিতরণ বিএমএসএফ’র সাংগঠনিক কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা সিরাজগঞ্জে বিএসটিআইয়ের অভিযানে মান সনদ না থাকায় ইটভাটা ও রেস্টুরেন্টকে জরিমানা নবাবগঞ্জে জমিজামা সংক্রান্ত কলহে প্রতিপক্ষকে মারপিট ও বাড়ী ভাঙচুর-লুটপাট,থানায় মামলা সারিয়াকান্দিতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত বর্তমান সময়ের সেরা রোমান্টিক জুটি নয়ন-অধরা নাগরপুরে দুই দিনব্যাপী অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধন সারিয়াকান্দিতে যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরামের আহ্বায়ক কমিটি গঠন তিন দিনের বাংলাদেশ সফরে ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

বাগমারায় প্রশাসনের সহযোগিতায় চলছে পুকুর খনন

নিজস্ব প্রতিবেদক: গত ১৪ নভেম্বর ২৩ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার গোবিন্দপাড়া ইউনিয়নের শান্তিপাড়া বিলে পুকুর খনন বন্ধে এলাকার কৃষক আবু জাফর, ওহিদুল, রাজ্জাকসহ দীর্ঘ সাক্ষরিত অভিযোগপত্র উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জমা দেন। কিছুদিন আগেই শুরু হয়েছে অবৈধ পুকুর খনন। অভিযোগকারীরা বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানালে হাট গাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের এস আই মাজেদ পুকুর খনন বন্ধ করে দেন। চার/পাঁচ দিন বন্ধ থাকার পরে দফারফা শেষে একটি ভেকু মেশিনের পরিবর্তে তিনটি মেশিন দিয়ে রাতের আধারে চলছে পুকুর খনন। প্রায় ১২ বিঘা জমিতে করখন্ড গ্রামের মুনছুরের ছেলে বিএনপিকর্মী বিদ্যুত ও তার লোকজন মিলে পুকুর খনন করছেন। ক্লান্ত পরিশ্রান্ত দেহ নিয়ে একটু বিশ্রামের আশায় পুরো এলাকাবাসি যখন গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন তখন ভেকু মেশিনের বিকট শব্দে ঘুম ভাংছে জনগণের। রাত ১১টা হতে সকাল ৮টা পর্যন্ত চলে পুকুর খনন। খনন শেষে ভেকু মেশিনগুলি লুকিয়ে রাখা হচ্ছে  পাশের বাগানে। অভিযোগকারীরা স্থানীয় প্রশাসনকে মুঠোফোনে জানালে তথ্যদাতার নাম জেনে যাচ্ছে পুকুর খননকারীরা। তথ্যদাতাকে দেওয়া হচ্ছে হুমকি ধামকি। এরই মাঝে উজার হচ্ছে তিন ফসলি জমি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ফসলি জমির মাটি বিক্রি হবে পাশের ইটভাটায়। কিছু দিনের মধ্যে ফসলি জমি রুপান্তরিত হবে পুকুরে। যেখানে

জাতীয় ভূমি ব্যবহার নীতিমালায় বলা হয়েছে জমির শ্রেণি পরিবর্তন করা যাবেনা। এছাড়াও বাগমারা উপজেলায় পুকুর খনন বন্ধে গত ২০১৭ সালের ৩ এপ্রিল তারিখে ৪৩৫৩/ ২০১৭ নম্বর রিট পিটিশনে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগ প্রদত্ত আদেশে সুস্পষ্টভাবে রাজশাহী জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি ) কৃষি জমিতে অবৈধভাবে পুকুর খনন বন্ধে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ প্রদান করেন। আদালতের উক্ত আদেশ যথারীতি বলবৎ ও কার্যকর থাকলেও তোয়াক্কা করছেন না ভুমি খেকোরা। ফলে ফসলি জমি নষ্ট করে চলছে পুকুর খনন। পুকুর খনন বন্ধে অভিযোগপত্র হাতে নিয়ে প্রশাসনের বিভিন্ন দ্বারে দ্বারে ঘুরেও ঠেকানো যাচ্ছেনা পুকুর খনন। স্থানীয় প্রশাসন অনৈতিক সুবিধা নিয়ে দিনের পরিবর্তে রাতে পুকুর খনন করতে সহায়তা করছেন বলে অভিযোগ তুলছেন এলাকার সচেতন মহল। এদিকে মজোপাড়া নিমাই বিলে প্রায় ১৫ বিঘা জমিতে পুকুর খনন করছেন শহিদুল নামে এক ব্যক্তি। এর কয়েকদিন আগে বানাইপুর বিলে পুকুর খনন করেন ইটভাটা মালিক জিয়া। এসব অভিযোগে প্রেক্ষিতে শান্তিপাড়া গ্রামে গিয়ে গনমাধ্যমকর্মীদের কাছে অভিযোগকারীদের দেওয়া অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। সেখানে গিয়ে দেখা গেছে, পুকুর খনন করতে গিয়ে পাকা রাস্তার ধারে সরকারি কালভার্ট বন্ধ করা হয়েছে। দিনের আলোয় গাড়ি গুলো রাখা হয়েছে পাশের বাঁশঝাড়ে। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, পুকুর খনন বন্ধে কেউ এগিয়ে আসছে না কাজ করছেনা স্থানীয় প্রশাসন। আমরা পুকুর খনন বন্ধে বাঁধা দিতে গেলে মারধরের উদ্দেশ্য তেড়ে আসছে বিদ্যুত ও তার লোকজন।

মজোপাড়া নিমাই বিলে পুকুর খননকারী শহিদুলকে ভেকু সাপ্লাই দেওয়া ভেকু দালাল সোহেল জানান,পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের আইসিসহ উপজেলা প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই পুকুর খনন করছি। এই ভাবেই বাগমারার পশ্চিম অংশে দেদার্সে চলছে অবৈধ পুকুর খনন।

এবিষয়ে শান্তিপাড়া বিলে পুকুর খননকারী বিদ্যুত জানান, পুকুর খনন করতে গিয়ে অনেক টাকা পয়সা ধরা খেয়েছি। মেশিন নষ্ট হয়ে গেছে পুকুর খনন বন্ধ আছে। স্থানীয়রা বলেন, প্রতিদিন রাতে পুকুর খনন করে ভেকু মেশিন লুকিয়ে রাখা হচ্ছে। কেউ জানতে চাইলে তারা বলছে ভেকু নষ্ট।

এবিষয়ে হাটগাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, পুকুর খনন চলছে এ ব্যাপারে আমি জানিনা। তবে আমি বিষয়টি দেখছি।

বাগমারা থানা ভারপ্রাপ্ত (ওসি) অরবিন্দ সরকার এর সরকারি ফোনে একাধিকবার ফোন করেও কোন সাড়া মেলেনি।

বাগমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: উজ্জল হোসেন মুঠোফোনে বলেন, পুকুর খননের বিষয়টি আমার জানা নাই। তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেন। আমি ব্যবস্থা নিব। তবে আগামী নির্বাচন নিয়ে সবাই একটু ব্যস্ত।

এব্যাপারে রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার সাইফুর রহমান পিপিএম বলেন, পুলিশ এবিষয়টি দেখে না। পুকুর বা জমি সংক্রান্ত বিষয় ইউএনও বা এসিল্যান্ড দেখেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ