ঢাকা ১২:২৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'যমুনা প্রতিদিন ডট কম' এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।
সংবাদ শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে প্রধানমন্ত্রী প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষার ডিজিটাল প্লাটফর্ম তৈরী করেছেন-পলক উপকূলে ফ্রিতে স্ত্রীরোগ ও মাতৃস্বাস্থ্য সেবা ক্যাম্প আরসিসি যুব সংঘের আয়োজনে রাজারহাটে শীতার্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ প্রাক্তন ছাত্র সমিতি কর্তৃক চান্দ্রা স্কুল এন্ড কলেজ মসজিদ নির্মাণে ১৬শ বস্তা সিমেন্ট হস্তান্তর প্রধানমন্ত্রীর জনসভা উপলক্ষ্যে মানুষের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে : তথ্যমন্ত্রী শনিবার রাজশাহী আসছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর পন্য খালাস হচ্ছে মোংলা বন্দরে ভালো স্ত্রীর যেসব গুণ থাকে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত সিএনজি চালকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ‘তিতাস ইয়াং ফ্রেন্ডস ক্লাব’ ‘অর্ণা মায়ের দেয়া শাড়ি পড়ে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যাবো’

নাস্তিক্যবাদী ও চুরি করা শিক্ষা সিলেবাস অবিলম্বে বাতিল করতে হবে : ছাত্র মজলিস

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৪৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২৩ ২৩ বার পড়া হয়েছে
যমুনা প্রতিদিন অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ইসলামী ছাত্র মজলিসের সাবেক কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য ও খেলাফত মজলিসের নারায়ণগঞ্জ মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতী শেখ শাব্বীর আহমাদ বলেছেন, ‘নতুন শিক্ষাক্রম-২০২৩ প্রণয়নের মাধ্যমে সরকার শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। নতুন পাঠ্যবইয়ে ইসলামী শিক্ষা সংকোচন করা হয়েছে। এদেশের ব্রিটিশ পূর্ববর্তী মুসলিম শাসক ও ইসলামী সমাজব্যবস্থাকে খাটো করা হয়েছে। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে এই বাংলার মুসলিম বীরদের ভূমিকা উপেক্ষা করা হয়েছে। বাংলা সাহিত্যে মুসলিম কবি-সাহিত্যিকদের লেখা সংকুচিত করা হয়েছে। ইসলামী বেশভূষা ও পোশাককে অবজ্ঞা করা হয়েছে। মাদ্রাসার পাঠ্যবইয়ে ইসলামী মূল্যবোধ পরিপন্থি লেখা ও ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে। ইসলামী বিশ্বাস পরিপন্থি বিবর্তনবাদ স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাঠ্য করা হয়েছে। কোন অপশক্তির ইন্ধনে পাঠ্যবইয়ের মাধ্যমে কোমলমতি শিশুদের মনে এমন সাম্প্রদায়িক ঘৃণা ও ইসলাম বিদ্বেষ সৃষ্টি করা হচ্ছে তা সরকারকে অবশ্যই খাতিয়ে দেখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বিদ্যমান পাঠ্যবই বহাল থাকলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম কেবল ঈমানহারা হয়েই গড়ে ওঠবে না বরং ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদী ও হিন্দুত্ববাদী মানসিকতা নিয়ে বেড়ে ওঠবে।৯২ ভাগ মুসলিম জনসংখ্যা অধ্যুষিত বাংলাদেশে এটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না। নতুন শিক্ষাক্রম বিজ্ঞান শিক্ষাকে সংকুচিত করে ফেলেছে। মূলধারার শিক্ষাকে একধরণের কারিগরি শিক্ষায় রূপান্তরের ফলাফল দেশের জন্য শুভ ফল নিয়ে আসবে না। চতুর্থ প্রজন্মের শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় যে ধরণের উদ্ভাবক, গবেষক ও নেতৃত্ব দরকার নতুন শিক্ষাক্রম তা সরবরাহ করতে ব্যার্থ হবে। নতুন শিক্ষাক্রম এদেশকে শুধুমাত্র উন্নত দেশগুলোর উদ্ভাবনী শক্তির বড় বাজারে পরিণত করার সুদূরপ্রসারী ষড়যন্ত্রের অংশ কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। তাই আমাদের আগামী প্রজন্মের ভবিষ্যতের জন্য এমন একটি শিক্ষাক্রম প্রণয়ন করতে হবে যা সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ধর্মীয় মূল্যবোধের সাথে সামঞ্জস্যশীল হবে এবং দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাবে। অবিলম্বে পাঠ্যবইয়ের বিতর্কিত অংশগুলো সংশোধন করতে হবে। পাঠ্যবই প্রণয়নে বিশেষজ্ঞ কমিটির মধ্যে ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী ব্যক্তি ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেম-উলামাকে অন্তুর্ভুক্ত করতে হবে।

বিতর্কিত ও নাস্তিক্যবাদী সিলেবাস বাতিলের দাবিতে ২০ জানুয়ারি’ শুক্রবার বাদ জুমা নারায়ণগঞ্জের ঐতিহাসিক ডিআইটি মসজিদ চত্বরে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখা আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইসলামী ছাত্র মজলিসের নারায়ণগঞ্জ মহানগর সভাপতি শরীফ মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি আলম আদনান, খেলাফত মজলিস ফতুল্লা থানার সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান মুনঈম, মহানগর প্রশিক্ষণ ও প্রচার সম্পাদক মুহাম্মাদ নেওয়াজ।

মহানগর সেক্রেটারি শেখ নাঈমুল ইসলামের পরিচালনায় নেতৃবৃন্দের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের জেলা সেক্রেটারি মুযযাম্মিল হক, মহানগর বায়তুলমাল ও অফিস সম্পাদক মুহাম্মাদ আবু সাঈদ, প্রকাশনা ও পাঠাগার সম্পাদক মুহাম্মাদ আনাস, সরকারি তোলারাম কলেজ তত্বাবধায়ক উমর মুজতাহিদ রিয়াদ, সরকারি আইইটি উচ্চ বিদ্যালয় শাখা সভাপতি রুবেল হাসান, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ শাখা সভাপতি শাকিল আহমদ, মাদ্রাসা শাখা সভাপতি জুনাঈদ আহমাদ, ঈদগাহ জোন সেক্রেটারি আল-ফাহাদ প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

নাস্তিক্যবাদী ও চুরি করা শিক্ষা সিলেবাস অবিলম্বে বাতিল করতে হবে : ছাত্র মজলিস

আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৪৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২৩

ইসলামী ছাত্র মজলিসের সাবেক কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি পরিষদ সদস্য ও খেলাফত মজলিসের নারায়ণগঞ্জ মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতী শেখ শাব্বীর আহমাদ বলেছেন, ‘নতুন শিক্ষাক্রম-২০২৩ প্রণয়নের মাধ্যমে সরকার শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। নতুন পাঠ্যবইয়ে ইসলামী শিক্ষা সংকোচন করা হয়েছে। এদেশের ব্রিটিশ পূর্ববর্তী মুসলিম শাসক ও ইসলামী সমাজব্যবস্থাকে খাটো করা হয়েছে। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে এই বাংলার মুসলিম বীরদের ভূমিকা উপেক্ষা করা হয়েছে। বাংলা সাহিত্যে মুসলিম কবি-সাহিত্যিকদের লেখা সংকুচিত করা হয়েছে। ইসলামী বেশভূষা ও পোশাককে অবজ্ঞা করা হয়েছে। মাদ্রাসার পাঠ্যবইয়ে ইসলামী মূল্যবোধ পরিপন্থি লেখা ও ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে। ইসলামী বিশ্বাস পরিপন্থি বিবর্তনবাদ স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাঠ্য করা হয়েছে। কোন অপশক্তির ইন্ধনে পাঠ্যবইয়ের মাধ্যমে কোমলমতি শিশুদের মনে এমন সাম্প্রদায়িক ঘৃণা ও ইসলাম বিদ্বেষ সৃষ্টি করা হচ্ছে তা সরকারকে অবশ্যই খাতিয়ে দেখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বিদ্যমান পাঠ্যবই বহাল থাকলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম কেবল ঈমানহারা হয়েই গড়ে ওঠবে না বরং ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদী ও হিন্দুত্ববাদী মানসিকতা নিয়ে বেড়ে ওঠবে।৯২ ভাগ মুসলিম জনসংখ্যা অধ্যুষিত বাংলাদেশে এটা কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না। নতুন শিক্ষাক্রম বিজ্ঞান শিক্ষাকে সংকুচিত করে ফেলেছে। মূলধারার শিক্ষাকে একধরণের কারিগরি শিক্ষায় রূপান্তরের ফলাফল দেশের জন্য শুভ ফল নিয়ে আসবে না। চতুর্থ প্রজন্মের শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় যে ধরণের উদ্ভাবক, গবেষক ও নেতৃত্ব দরকার নতুন শিক্ষাক্রম তা সরবরাহ করতে ব্যার্থ হবে। নতুন শিক্ষাক্রম এদেশকে শুধুমাত্র উন্নত দেশগুলোর উদ্ভাবনী শক্তির বড় বাজারে পরিণত করার সুদূরপ্রসারী ষড়যন্ত্রের অংশ কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। তাই আমাদের আগামী প্রজন্মের ভবিষ্যতের জন্য এমন একটি শিক্ষাক্রম প্রণয়ন করতে হবে যা সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ধর্মীয় মূল্যবোধের সাথে সামঞ্জস্যশীল হবে এবং দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাবে। অবিলম্বে পাঠ্যবইয়ের বিতর্কিত অংশগুলো সংশোধন করতে হবে। পাঠ্যবই প্রণয়নে বিশেষজ্ঞ কমিটির মধ্যে ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী ব্যক্তি ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলেম-উলামাকে অন্তুর্ভুক্ত করতে হবে।

বিতর্কিত ও নাস্তিক্যবাদী সিলেবাস বাতিলের দাবিতে ২০ জানুয়ারি’ শুক্রবার বাদ জুমা নারায়ণগঞ্জের ঐতিহাসিক ডিআইটি মসজিদ চত্বরে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখা আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইসলামী ছাত্র মজলিসের নারায়ণগঞ্জ মহানগর সভাপতি শরীফ মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি আলম আদনান, খেলাফত মজলিস ফতুল্লা থানার সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান মুনঈম, মহানগর প্রশিক্ষণ ও প্রচার সম্পাদক মুহাম্মাদ নেওয়াজ।

মহানগর সেক্রেটারি শেখ নাঈমুল ইসলামের পরিচালনায় নেতৃবৃন্দের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের জেলা সেক্রেটারি মুযযাম্মিল হক, মহানগর বায়তুলমাল ও অফিস সম্পাদক মুহাম্মাদ আবু সাঈদ, প্রকাশনা ও পাঠাগার সম্পাদক মুহাম্মাদ আনাস, সরকারি তোলারাম কলেজ তত্বাবধায়ক উমর মুজতাহিদ রিয়াদ, সরকারি আইইটি উচ্চ বিদ্যালয় শাখা সভাপতি রুবেল হাসান, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ শাখা সভাপতি শাকিল আহমদ, মাদ্রাসা শাখা সভাপতি জুনাঈদ আহমাদ, ঈদগাহ জোন সেক্রেটারি আল-ফাহাদ প্রমুখ।