ঢাকা ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'যমুনা প্রতিদিন ডট কম' এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।
সংবাদ শিরোনাম :
৫৩ বিজিবির পৃথক অভিযানে ভারতীয় ২২টি গরু সহ একজন আটক চারঘাটে ইসলামী ব্যাংক এজেন্ট মালিকের বিরুদ্ধে আয়কর ফাঁকির অভিযোগ পত্নীতলায় জেলা প্রশাসকের সাথে মতবিনিময় সভা মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটর এক্সপার্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি মিটআপ ২০২৩ অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম কলেজ প্রাক্তন ছাত্রলীগ পরিষদের যৌথ সভা অনুষ্ঠিত ৭টি উপ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করা আহ্বান বঙ্গদ্বীপ এম এ ভাসানীর নড়াইলে প্রেমের ফাঁদে ফেলে স্ত্রীকে নির্যাতন ও মামলা দিয়ে হয়রানীর অভিযোগ কুড়িগ্রাম সদরে জমি নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫ শেখ হাসিনার গাড়ি বহর হামলা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমানসহ দুজন  চাটখিলে দিনমজুরের লাশ উদ্ধার

রাণীশংকৈলে দোকানে ভাংচুর ও হুমকির মামলায় কাউন্সিলরসহ আটক ২

রাণীশংকৈল প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ০৯:১০:২১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৩ ১৬ বার পড়া হয়েছে
যমুনা প্রতিদিন অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল পৌরশহরে দোকানে ভাংচুর ও হুমকির মামলায় বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে কাউন্সিলর আবু তালেবকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

এইসাথে বিকেল ২ টার দিকে ঘটনাস্থল ভাইভাই হার্ডওয়্যার স্টোরের সামনে থেকে তদন্তে প্রাপ্ত আসামি হিসেবে লেমন(৩০)নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

লেমন ভান্ডারা এলাকার আবুল কালামের ছেলে।

রাণীশংকৈল থানার ওসি গুলফামুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তদন্তকালে ডিসি মাহবুবর রহমান,এসপি জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক সংসদ সদস্য সেলিনা জাহান লিটা, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না, ইউএনও সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির, আ’লীগ সভাপতি অধ্যাপক সইদুল হক,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেফালি বেগম, এসি ল্যান্ড ও পৌর মেয়র মোস্তাফিজুর রহমানসহ বিভিন্ন নেতা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ জানুয়ারি রবিবার পৌর কাউন্সিলর আবু তালেব ভাইভাই হার্ডওয়্যার দোকানে গিয়ে সামনে রাখা মালামাল সরাবার কথা বলে বেধড়ক ওই মালামাল ভাংচুর করে। এসময় মেয়র ঘটনাস্থলে এসেও তালেবকে থামাতে পারেননি।এতে দোকানের ও আশপাশের লোকজন তালেবকে ঘেরাও করে গণধোলাই দেয়। আহত কাউন্সিলরকে দিনাজপুর মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এরমধ্যে পৌরমেয়রসহ নেতারা ঘটনার মিমাংসা করতে ব্যর্থ হন।হাসপাতাল থেকে ফিরে কাউন্সিলর তালেব দলবল নিয়ে গত বুধবার ১৮ জানুয়ারি সন্ধ্যায় একটি প্রতিবাদ মিছিল করেন। মিছিলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজনকে হত্যার হুমকিসহ বিভিন্ন আপত্তিকর শ্লোগান দেয়া হয়।মেয়রের বিরুদ্ধেও অনুরূপ শ্লোগান দেয়া হয়। এনিয়ে ওই রাতেই দোকানদারদের পক্ষে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

রাণীশংকৈলে দোকানে ভাংচুর ও হুমকির মামলায় কাউন্সিলরসহ আটক ২

আপডেট সময় : ০৯:১০:২১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৩

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল পৌরশহরে দোকানে ভাংচুর ও হুমকির মামলায় বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে কাউন্সিলর আবু তালেবকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

এইসাথে বিকেল ২ টার দিকে ঘটনাস্থল ভাইভাই হার্ডওয়্যার স্টোরের সামনে থেকে তদন্তে প্রাপ্ত আসামি হিসেবে লেমন(৩০)নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

লেমন ভান্ডারা এলাকার আবুল কালামের ছেলে।

রাণীশংকৈল থানার ওসি গুলফামুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তদন্তকালে ডিসি মাহবুবর রহমান,এসপি জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক সংসদ সদস্য সেলিনা জাহান লিটা, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না, ইউএনও সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির, আ’লীগ সভাপতি অধ্যাপক সইদুল হক,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেফালি বেগম, এসি ল্যান্ড ও পৌর মেয়র মোস্তাফিজুর রহমানসহ বিভিন্ন নেতা ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ জানুয়ারি রবিবার পৌর কাউন্সিলর আবু তালেব ভাইভাই হার্ডওয়্যার দোকানে গিয়ে সামনে রাখা মালামাল সরাবার কথা বলে বেধড়ক ওই মালামাল ভাংচুর করে। এসময় মেয়র ঘটনাস্থলে এসেও তালেবকে থামাতে পারেননি।এতে দোকানের ও আশপাশের লোকজন তালেবকে ঘেরাও করে গণধোলাই দেয়। আহত কাউন্সিলরকে দিনাজপুর মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এরমধ্যে পৌরমেয়রসহ নেতারা ঘটনার মিমাংসা করতে ব্যর্থ হন।হাসপাতাল থেকে ফিরে কাউন্সিলর তালেব দলবল নিয়ে গত বুধবার ১৮ জানুয়ারি সন্ধ্যায় একটি প্রতিবাদ মিছিল করেন। মিছিলে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজনকে হত্যার হুমকিসহ বিভিন্ন আপত্তিকর শ্লোগান দেয়া হয়।মেয়রের বিরুদ্ধেও অনুরূপ শ্লোগান দেয়া হয়। এনিয়ে ওই রাতেই দোকানদারদের পক্ষে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।