বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পানি ও বিদ্যুৎ সংকটে রাজশাহীতে মৎস্যচাষীরা আরএমপি’র সহকারী প্রশাসন জুলমাত হাবিবের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতি’র অভিযোগ সকল প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে খুলনায় বায়োজিন এলো আন্তর্জাতিক মানের স্কিনকেয়ার সেবা নিয়ে বিএমডিএ : মিথ্যা তথ্যে পিডি নিয়োগ,৮ কোটি টাকার কাজ ভাগ-বাটোয়ারার আয়োজন মোহনপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই এমপির চেয়ারম্যান প্রার্থীর লড়াই মোহনপুরে উপজেলা নির্বাচন বর্জনের ডাকে বিএনপির লিফলেট বিতরণ নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী মোশারফ শেখ ফরিদ-আশুরা ভাইস চেয়ারম্যান এমপি আবুল কালাম আজাদের চাচাতো ভাইয়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হলেন শরীফ সারিয়াকান্দিতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা, থানায় অভিযোগ
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

বিএনপি নেতা মিলনের মুক্তির দাবিতে রাবির ২০০ শিক্ষকের বিবৃতি

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিবৃতি দিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের ২০০ শিক্ষক।আজ ১১ সেপ্টেম্বর সোমবার তাঁরা এই বিবৃতি দেন।

বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, গত ২৮ জুলাই অনুষ্ঠিত ঢাকার মহাসমাবেশে অংশগ্রহণ করতে গিয়ে অ্যাডভোকেট শফিকুল হককে গ্রেপ্তার করা হয়।সেই থেকে তিনি একমাসের বেশি সময় ধরে কারাগারে আছেন।সেই মামলায় জামিন পেলেও ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাঁর বিরুদ্ধ আরো কয়েকটি মামলা দিয়ে ঢাকার জেল গেট থেকে তাঁকে আবারও আটক করা হয়।শুধু তাই নয়, রাজশাহীর বিভিন্ন থানায় অতি উৎসাহী কিছু পুলিশ সদস্য বাদী হয়ে একের পর তাঁর বিরুদ্ধে সাজানো ও বানোয়াট মামলা দিয়ে অন্যায়ভাবে আটক করে রেখেছে।

তাঁরা আরও বলেন,মিলন শারীরিকভাবে অসুস্থ।তাঁর চিকিৎসার প্রয়াজন।তাঁর স্ত্রীও অসুস্থ।মিলনের ছেলে বিদেশে পড়লেখা করছে।পিতার এই দুরাবস্থায় মানসিক চাপে তাঁর লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে।চলমান এক দফা দাবি আদায়ের আন্দোলনে সরকার ভীত হয়ে গায়েবি মামলা দিয়ে মিলনের উপর নির্যাতন ও আটক করে রেখেছে।আমরা অবিলম্বে অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলনের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।আর তা না করা হলে রাজশাহীবাসি গণআন্দোলনের মাধ্যমে তাকে মুক্ত করবে।

বিবৃতিতে স্বাক্ষরদাতারা হলেন,জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক ড. এফ. নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুল হাসান খান মুক্তা, ফোরামের উপদেষ্টা অধ্যাপক সায়েদুর রহমান পান্নু, কলা অনুষদের ডীন অধ্যাপক মো. ফজলুল হক, বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক সাহেদ জামান, অধ্যাপক মতিয়ার রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক নুরুল হক মোল্লা, নির্বাহী সদস্য ও ভূবিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক খন্দকার ইমামুল হক সানজিদ, অধ্যাপক মোস্তফা কামাল আকন্দ, অধ্যাপক গোলাম মর্তুজা, অধ্যাপক হাবিবুর রহমান, অধ্যাপক মামুনুর রশিদ, অধ্যাপক নাজমা আফরোজ।

অধ্যাপক মোহা: হাছানাত আলী, কৃষি অনুষদের ডীন অধ্যাপক আব্দুল আলীম, চারুকলা অনুষদের ডীন অধ্যাপক মোহাম্মদ আলি অধ্যাপক আওরঙ্গজেব আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক মো. সাজ্জাদুর রহিম সাজিদ, যুগ্ম-সম্পাদক অধ্যাপক সাবিরুজ্জামান সুজা ও অধ্যাপক পারভেজ আজহারুল হক প্রিন্স, অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম, অধ্যাপক আব্দুল খালেক, অধ্যাপক আমিনুল হক (পরি), অধ্যাপক আমীরুল ইসলাম, অধ্যাপক আনিসুর রহমান, অধ্যাপক আনোয়ারুল কবির ভুইয়া রুবেল, অধ্যাপক মইজুর রহমান, অধ্যাপক মোজাফফর হোসেন, অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান মন্ডল, অধ্যাপক ড. মতিউর রহমান, অধ্যাপক সারোয়ার জাহান, অধ্যাপক ইফতেখারুল আলম মাসুদ, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, অধ্যাপক আরিফুর রহমান, অধ্যাপক খালেদুজ্জামান মিজান, অধ্যাপক আব্দুল মতিন, অধ্যাপক ইসমাইল তারেক, অধ্যাপক হারুনর রশিদ, অধ্যাপক আব্দুস সোবহান হিরা, অধ্যাপক আব্দুস, অধ্যাপক সামিউল ইসলামসহ আরো অনেকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 3 =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x