ঢাকা ০৪:২৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'যমুনা প্রতিদিন ডট কম' এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে।
সংবাদ শিরোনাম :
রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে সুশাসন প্রতিষ্ঠার নিমিত্তে অংশীজনের সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন আহমেদ ও কবির বিন আনোয়ারকে সংবর্ধনা রাজশাহীতে চিত্রশিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদের নামে আর্ট গ্যালারি করা হবে : রাসিক মেয়র ভারতের প্রমোদতরী ‘গঙ্গা বিলাস’ সুন্দরবনে ৫৯ বিজিবি কর্তৃক শিয়ালমারা ও আজমতপুর সীমান্তে বিদেশী মদ ও ফেন্সিডিল আটক রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুরি হওয়া মেশিন উদ্ধার,আটক ৪ মোরেলগঞ্জে স্হানীয় সাংসদের পক্ষ থেকে শীতবস্ত্র বিতরণ সৈয়দ নজরুল ইসলামের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে ৩২ হাজার কম্বল বিতরণ পাইকগাছা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত পদ্মায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ট্রাক্টর মালিকের জেল

জামালগঞ্জে কালিমন্দিরের জায়গা ফেরত ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে গ্রামবাসীর মানববন্ধন

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৩:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ ২৭ বার পড়া হয়েছে
যমুনা প্রতিদিন অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনা বাজার ইউনিয়নের চানঁপুর গ্রামে গতবছর স্যাটেলমেন্টের জড়িপের সময় কালি মন্দিরের নামে ৪০ একর গোচারণ ভূমি গ্রামের প্রভাবশালী রামচন্দ্র তালুকদার তার ভাই ভরত তালুকদার ও ছেলের নামে মাঠ জরিপ রেকর্ড করার প্রতিবাদ করায় গ্রামবাসরি নামে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে ও মন্দিরের জায়গা ফেরতের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার দুপুরে চানঁপুর গ্রামবাসির আয়োজনে মন্দিরের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এতে গ্রামের দুইশতাধিক লোকজন অংশগ্রহন করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন গ্রামের সুবল তালুকদার, সাবেক ইউপি সদস্য সুজন হালদার,মন্টু তালুকদার,গয়চাঁন বিশ্বাস,ধীরেন্দ্র তালুকদার,সুনীল বিশ্বাস,মনিন্দ্র তালুকদার ও রবীন্দ্র বিশ্বাস প্রমুখ।বক্তারা বলেন,গ্রামের রামচন্দ্র তালুকদার অনেক সম্পদশালী হওয়ার কারণে তাকে কালিমন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি করা হয়।তিনি মন্দিরের সভাপতি হওয়ার পর থেকে মন্দির আয় ব্যয়ের হিসাব তার কাছে ছিল। কিন্তু গতবছরের স্যাটেলমেন্টের জরিপের সময় এই কালি মন্দিরের নামে গ্রামের লায়েক পতিত ৪০ একর (কান্দা) জমি তার রামচন্দ্র তালুকদার ভাই ভরত তালুকদার ও ছেলের নামে রেকর্ড করে নেন।

বিষয়টি গ্রামবাসি জানতে পেরে প্রতিবাদ করলে তিনি গত দেড়মাসে নারী নির্যাতন মামলা থেকে শুরু করে ৬ থেকে ৭টি মামলা গ্রামবাসির বিরুদ্ধে করে সাধারন মানুষকে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ করেন।পুলিশের ভয়ে গ্রামের সাধারন কৃষকরা বোরো জমিন আবাদের সময়ও গ্রাম ছাড়া হয়ে রাতিও্রযাপন করছেন।

তারা বিষয়টি তদন্ত করে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার সহ মন্দিরের জায়গা মন্দিরের নামে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পুলিশ সুপারের নিকট দাবী জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

জামালগঞ্জে কালিমন্দিরের জায়গা ফেরত ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে গ্রামবাসীর মানববন্ধন

আপডেট সময় : ০৫:৩৩:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনা বাজার ইউনিয়নের চানঁপুর গ্রামে গতবছর স্যাটেলমেন্টের জড়িপের সময় কালি মন্দিরের নামে ৪০ একর গোচারণ ভূমি গ্রামের প্রভাবশালী রামচন্দ্র তালুকদার তার ভাই ভরত তালুকদার ও ছেলের নামে মাঠ জরিপ রেকর্ড করার প্রতিবাদ করায় গ্রামবাসরি নামে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে ও মন্দিরের জায়গা ফেরতের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার দুপুরে চানঁপুর গ্রামবাসির আয়োজনে মন্দিরের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এতে গ্রামের দুইশতাধিক লোকজন অংশগ্রহন করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন গ্রামের সুবল তালুকদার, সাবেক ইউপি সদস্য সুজন হালদার,মন্টু তালুকদার,গয়চাঁন বিশ্বাস,ধীরেন্দ্র তালুকদার,সুনীল বিশ্বাস,মনিন্দ্র তালুকদার ও রবীন্দ্র বিশ্বাস প্রমুখ।বক্তারা বলেন,গ্রামের রামচন্দ্র তালুকদার অনেক সম্পদশালী হওয়ার কারণে তাকে কালিমন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি করা হয়।তিনি মন্দিরের সভাপতি হওয়ার পর থেকে মন্দির আয় ব্যয়ের হিসাব তার কাছে ছিল। কিন্তু গতবছরের স্যাটেলমেন্টের জরিপের সময় এই কালি মন্দিরের নামে গ্রামের লায়েক পতিত ৪০ একর (কান্দা) জমি তার রামচন্দ্র তালুকদার ভাই ভরত তালুকদার ও ছেলের নামে রেকর্ড করে নেন।

বিষয়টি গ্রামবাসি জানতে পেরে প্রতিবাদ করলে তিনি গত দেড়মাসে নারী নির্যাতন মামলা থেকে শুরু করে ৬ থেকে ৭টি মামলা গ্রামবাসির বিরুদ্ধে করে সাধারন মানুষকে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ করেন।পুলিশের ভয়ে গ্রামের সাধারন কৃষকরা বোরো জমিন আবাদের সময়ও গ্রাম ছাড়া হয়ে রাতিও্রযাপন করছেন।

তারা বিষয়টি তদন্ত করে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার সহ মন্দিরের জায়গা মন্দিরের নামে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পুলিশ সুপারের নিকট দাবী জানান।