বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৫:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাঘায় দশটি ওয়ান শুটারগানসহ অস্ত্র ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ গ্রেপ্তার বাঘায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সংঘাত ও সহিংসতা পরিহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের ২০২৪-২০২৫ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা সারিয়াকান্দিতে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ সারিয়াকান্দিতে দুর্নীতি বিরোধী বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত চারঘাটে বিএসটিআই’র অভিযানে বেকারিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা পানি ও বিদ্যুৎ সংকটে রাজশাহীতে মৎস্যচাষীরা আরএমপি’র সহকারী প্রশাসন জুলমাত হাবিবের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতি’র অভিযোগ সকল প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে খুলনায় বায়োজিন এলো আন্তর্জাতিক মানের স্কিনকেয়ার সেবা নিয়ে বিএমডিএ : মিথ্যা তথ্যে পিডি নিয়োগ,৮ কোটি টাকার কাজ ভাগ-বাটোয়ারার আয়োজন
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

জামালগঞ্জে কালিমন্দিরের জায়গা ফেরত ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে গ্রামবাসীর মানববন্ধন

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনা বাজার ইউনিয়নের চানঁপুর গ্রামে গতবছর স্যাটেলমেন্টের জড়িপের সময় কালি মন্দিরের নামে ৪০ একর গোচারণ ভূমি গ্রামের প্রভাবশালী রামচন্দ্র তালুকদার তার ভাই ভরত তালুকদার ও ছেলের নামে মাঠ জরিপ রেকর্ড করার প্রতিবাদ করায় গ্রামবাসরি নামে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির প্রতিবাদে ও মন্দিরের জায়গা ফেরতের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার দুপুরে চানঁপুর গ্রামবাসির আয়োজনে মন্দিরের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এতে গ্রামের দুইশতাধিক লোকজন অংশগ্রহন করেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন গ্রামের সুবল তালুকদার, সাবেক ইউপি সদস্য সুজন হালদার,মন্টু তালুকদার,গয়চাঁন বিশ্বাস,ধীরেন্দ্র তালুকদার,সুনীল বিশ্বাস,মনিন্দ্র তালুকদার ও রবীন্দ্র বিশ্বাস প্রমুখ।বক্তারা বলেন,গ্রামের রামচন্দ্র তালুকদার অনেক সম্পদশালী হওয়ার কারণে তাকে কালিমন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি করা হয়।তিনি মন্দিরের সভাপতি হওয়ার পর থেকে মন্দির আয় ব্যয়ের হিসাব তার কাছে ছিল। কিন্তু গতবছরের স্যাটেলমেন্টের জরিপের সময় এই কালি মন্দিরের নামে গ্রামের লায়েক পতিত ৪০ একর (কান্দা) জমি তার রামচন্দ্র তালুকদার ভাই ভরত তালুকদার ও ছেলের নামে রেকর্ড করে নেন।

বিষয়টি গ্রামবাসি জানতে পেরে প্রতিবাদ করলে তিনি গত দেড়মাসে নারী নির্যাতন মামলা থেকে শুরু করে ৬ থেকে ৭টি মামলা গ্রামবাসির বিরুদ্ধে করে সাধারন মানুষকে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ করেন।পুলিশের ভয়ে গ্রামের সাধারন কৃষকরা বোরো জমিন আবাদের সময়ও গ্রাম ছাড়া হয়ে রাতিও্রযাপন করছেন।

তারা বিষয়টি তদন্ত করে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার সহ মন্দিরের জায়গা মন্দিরের নামে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পুলিশ সুপারের নিকট দাবী জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

8 + 13 =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x