রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

সুজানগরে সরিষা প্রদর্শনীর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

সুজানগর উপজেলা কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর উদ্যোগে এবং রবি/২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে রাজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়িত (বারি সরিষা-১৪) প্রদর্শনীর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বিকাল ৪টায় উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের আন্ধারকোটা গ্রামের মাঠে ওই মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে মাঠ দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পাবনার উপ-পরিচালক কৃষিবিদ ড.মোঃ সাইফুল আলম।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সুজানগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহীন, পৌর মেয়র রেজাউল করিম রেজা ও দুলাই মডেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান।কৃষকদের মধ্যে বক্তব্য দেন আজিজুল ইসলাম।

এর আগে মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সুজানগর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রাফিউল ইসলাম।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন এসএপিপিও আলমগীর হোসেন।

অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর পাবনার উপ-পরিচালকের পত্নী ফাতেফা জান্নাত।

মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর পাবনার অতিরিক্ত উপ-পরিচালক মোঃ রোকনুজ্জামান, কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর পাবনার প্রশিক্ষক কৃষিবিদ সাইফুল ইসলাম, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ কানিজ ফারজানা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি আব্দুল জলিল বিশ্বাস,সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান,সাবেক আইন বিষয়ক সম্পাদক রায়হান আলী, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকতা মাহে আলম,সুজানগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম এ আলিম রিপন, উপ-সহকারী কৃষি অফিসার সহ শতাধিক কৃষক ও কৃষণী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর পাবনার উপ-পরিচালক কৃষিবিদ ড.মোঃ সাইফুল আলম বলেন, এক সময় আমরা ভোজ্য তেল বলতে সরিষার তেলকেই বুঝতাম।জনসংখ্য বৃদ্ধির সাথে সাথে ভোজ্য তেলের চাহিদা বাড়ার ফলে এবং স্থানীয় জাতের সরিষার ফলন কম হওয়ার কারণে বিকল্প ভোজ্য তেল সয়াবিনের প্রতি আমাদের ঝুঁকতে হয়।

তিনি বলেন, সরিষার তেলে মানব দেহের জন্য অনেক গুণাগুণ রয়েছে। কৃষি বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত বারি সরিষা-১৪ জাতটি স্বল্প জীবনকাল এবং ফলন অনেক বেশি হওয়ায় কৃষকদের লাভের পরিমান অনেক বাড়বে বলে তিনি আশা আশা করেন।

স্বাগত বক্তব্যে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রাফিউল ইসলাম বলেন,কৃষি সমপ্রসারণের নতুন প্রযুক্তি হল সরিষার ক্ষেতে মৌ-বাক্স স্থাপন।এটি পরিবেশ সম্মত।পাশাপাশি একটি বাড়তি আয়ের ফলে কৃষকের লাভের পরিমাণ বাড়ে।তিনি এ প্রযুক্তিকে আরও লাভজনক করতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কাজ করছে বলে উল্লেখ করেন।

শেষে অতিথিবৃন্দ স্থানীয় কৃষক,কৃষাণী ও সরকারি কর্মকর্তারা মৌ বাক্স থেকে মধু আহরণ প্রত্যক্ষ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × two =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x