রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রীর শ্রদ্ধা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পুনরায় রেজাউল করিম মন্টুকে নির্বাচিত করতে এলাকাবাসীর মতবিনিময় সারিয়াকান্দিতে পালিত হয়েছে ‘জাতীয় ভোটার দিবস’ রাজশাহীতে ফ্রি চিকিৎসা দিচ্ছে ডাঃ আল আমিন বাগমারায় মেটলাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির জাতীয় বীমা দিবস পালন সারিয়াকান্দিতে জাতীয় বীমা দিবস পালিত রাজশাহীতে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি’র অবস্থান কর্মসূচি পালন,বরেন্দ্র ভবন ঘেরাও প্রতিবাদী সাংবাদিক খান মেহেদীর জন্মদিন আজ! মন্ত্রীসভায় শপথ গ্রহণের ডাক পেলেন আব্দুল ওয়াদুদ দারা রাজশাহীর প্রবীণ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শরীফের মৃত্যুতে মহানগর জাসদের শোক
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

বেলকুচিতে মেয়রের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন!

সড়কে স্থায়ী তোরণ অপসারণের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্যকে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ নোটিশ প্রেরণকে কেন্দ্র করে মেয়রের বিরুদ্ধে করা মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন সিরাজগঞ্জ বেলকুচি পৌর মেয়র সাজ্জাদুল হক রেজা।

মঙ্গলবার (২৩ মে) দুপুরে পৌর ভবনের সম্মেলন কক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় মেয়র তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন, একটি কুচক্রী মহল জননেত্রী শেখ হাসিনার আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন নগরায়ন ও উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করে আমাকে ও স্থানীয় সরকারের পৌরসভার সকল কার্যক্রমকে বাঁধাগ্রস্থ করার চেষ্টা চালাচ্ছে।স্থানীয় সরকারের অধীনে পৌরসভার উন্নয়নমূলক কাজের জন্য এমপির ডিও লেটার প্রয়োজন হয়।তিনি পৌরসভার উন্নয়নে কোন প্রকার ডিও লেটার প্রদান করেন না।এতেও পৌরসভার উন্নয়নমূলক কাজে প্রতিনিয়ত বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে।

এছাড়াও ১৩ মে ঘটনার দিন কয়েক দফায় এমপি অনুসারীরা আমাদের লোকজনের উপর হামলা করলে সেই হামলার ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলেও বেলকুচি থানার ওসি পক্ষপাতিত্ব করে কোন মামলাই রেকর্ড করেনি।তাই ওসি’র এমন পক্ষপাতিত্বের তীব্র নিন্দা জানাই।

স্থানীয় পরিবহন মালিক শ্রমিক ও সাধারণ মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে স্থানীয় সংসদ সদস্যের নির্মিত স্থায়ী তোরণ অপসারনের নোটিশ করলে তার সর্মথকরাই পরিকল্পিত ভাবে আমাদের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে।উল্টো আবার তারাই আমাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের হেনস্থা করছেন।জনগনকে সাথে নিয়ে তিনি পৌরসভার উন্নয়ন করতে চান।

এ ব্যাপারে বেলকুচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম হোসেন বলেন, পৌর ছাত্রলীগ সেদিন একটি বিক্ষোভ কর্মসূচী ছিল।এসময় মেয়রের লোকজন তাদের উপর হামলা করে।আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে উভয় পক্ষকে দলীয় কার্যালয় থেকে সরিয়ে দেই।তিনি বলেন, আমাদের সহোযোগীতার বিষয়ে মেয়রের বক্তব্য পুরোপুরি মিথ্যা।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেগম আশানুর বিশ্বাস বলেন, সেদিন আমাদের কোন রাজনৈতিক কর্মসূচি ছিল না, মেয়র রেজা আমাদের নেতাকর্মীদের নিয়ে চা চক্র করছিলেন।ঐ সময় এমপির ব্যক্তিগত সহকারী সেলিম সরকার আওয়ামী লীগের প্রোগ্রামের কথা বলে পরিকল্পিত ভাবে নেতাকর্মীদের উপরে হামলা চালায়।সেদিনের ঘটনায় এমপির পক্ষ থেকে মামলা নিলেও পুলিশের পক্ষপাতিত্বের জন্য মেয়রের কোন মামলা নেয়নি।

এবিষয়ে বেলকুচি-চৌহালী আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মমিন মন্ডল দেশের বাইরে অবস্থান করায় তার বক্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বেলকুচি পৌরসভার প্যানেল মেয়র ইকবাল রানা, কাউন্সিলর শহিদুল ইসলাম, তারেক সরকার, মহিলা কাউন্সিলর স্বর্ণা পারভীন, নার্গিস বেগম উষা সহ পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ প্রমূখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ