সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজশাহী বরেন্দ্র কলেজের নতুন অধ্যক্ষ রণজিৎ কুমার সাহা জাতীয় ব্লাইন্ড ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির সভাপতি হলেন সংগীতশিল্পী ফারদিন রাজশাহীতে বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস পালন সারিয়াকান্দিতে উপজেলা পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা বিয়েতে রাজি না হওয়ায় আত্মহত্যা, প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে মামলা সারিয়াকান্দির সেই মেধাবী ছাত্র সাকিবুল হাসানের দায়িত্ব নিলেন সাহাদারা মান্নান এমপি সারিয়াকান্দিতে জিপিএ-৫ পেয়েও অর্থের অভাবে কলেজে ভর্তি অনিশ্চিত সাকিবুল হাসানের সারিয়াকান্দিতে ইউএনও’র সাথে নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যানের শুভেচ্ছা বিনিময় সারিয়াকান্দিতে সরকারি খাদ্য গুদামে ইরি-বোরো ধান ও চাল সংগ্রহের শুভ উদ্বোধন সারিয়াকান্দিতে ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটসহ গ্রেফতার-২
নোটিশ :
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘যমুনা প্রতিদিন ডট কম’

তিস্তা নদীর পাড়ে

তিস্তা নদীর পাড়ে

মোঃ জাবেদুল ইসলাম

বন্ধু, সোনা মিয়ার বাড়ি,
তিস্তা নদীর পাড়ে।
প্রতি বছর ছোবল মারে
বন্যা সর্বনাশে।
বন্ধু, সোনার তিস্তা পাড়ে,
দুটি কুঁড়ে ঘর।
একটাতে রাধে বারে,
অন্যটাতে ঘুমায়।
বউ বাচ্চা নিয়ে সোনার,
কষ্টে কাটে দিন।
রাতের বেলা ঘুমাতে গেলে,
আসে না চোখে নিন।
মাঘের শীতে একটু খানি,
গামছা পড়ে সোনা।
ডুব দিয়ে পাথর তুলে,
পানি বরপ ঠান্ডা।
কখনো তুলে পাথর সোনা,
কখনো ধরে মাছ।
অতি কষ্টে জীবন সোনার,
কাটে বারো মাস।
ফসলি ছিল তিনখান ভুঁই,
তিস্তার অই পাড়ে।
ধান পাট ভুট্টা ফলায় সোনা
শাক সবজি পুঁই।
পাশের চরে মন্টু মিয়ার
রুপালী একটি মেয়ে।
সারা দেহে এতো রূপ তাঁর,
চোখ পড়ে না ফিরে।
রূপালীরে একদিন সোনা,
আসলো নিয়ে ঘরে।
সুখের সংসার গড়বে সোনা
আশা নিয়ে অরে।
সুখে অনেক দিন কেটে যায়,
সোনা, রূপালীর।
একদিন হঠাৎ গভীর রাতে,
শুনি কোলাহল।
তিস্তা নদীর করাল গ্রাসে,
ভাসিয়ে গেল সব।
সাতরে কেবল জীবন বাঁচায়,
রূপালী আর সোনা।
এ’পাড়েতে তারা দু’জন,
বাঁধলো সুখের ঘর।
কাজ কর্ম নেইতো কোথাও
হয় না উপার্জন।
কাজের খোঁজে যেতে হয়,
সুদুর ঢাকা শহর।
সেখানেতেও মেলে না কাজ,
জ্বালা দুঃ বিসহ।
তিস্তা পাড়ে বহু জমি,
পড়ে আছে পতিত।
এখানেতে ইপিজেড, পর্যটন,
প্রজেক্ট, হতো যদি অধিক।
পাঁচটি জেলার ভিতর দিয়ে
তিস্তা বয়ে গেছে।
লক্ষ কোটি একর জমি,
তিস্তা ধরে আছে।
তোমরা যায়া আছো বসে,
নদী কমিশনে।
তিস্তা নদী কর খনন,
করমো বাড়াও মোদের।
সংসদে আছেন যারা,
এমপি, মিনিস্টার।
তিস্তা নদীর আলোচনা,
করো বার বার।
এই নিবেদন করছি আমি,
বসে তিস্তা নদীর পাড়ে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

six − 2 =


অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ

x