ঢাকা ০৫:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ জুন ২০২৩, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বিশেষ বিজ্ঞপ্তি ::
দেশের জনপ্রিয় সর্বাধুনিক নিয়ম-নীতি অনুসরণকৃত রাজশাহী কর্তৃক প্রকাশিত নতুনধারার অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'যমুনা প্রতিদিন ডট কম' এ আপনাকে স্বাগতম...

মান্দায় ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ এনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৩:০২:৩১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ এপ্রিল ২০২৩ ৩২৪ বার পড়া হয়েছে
যমুনা প্রতিদিন অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নওগাঁর মান্দায় বিনামূল্যে ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ এনে ৯নং তেঁতুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল ও মেম্বারদের বিরুদ্ধে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতারা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) বিকাল ৫টার সময় তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি গাজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে দলীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে নেতারা অভিযোগ এনে বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল দলীয় তালিকা অনুসরণ না করে মনগড়া ভাবে নিজেদের লোকজনের মাঝে চাল বিতরণ করেছেন।এবারে গত বারের তালিকা অনুযায়ী সাড়ে ৪শত জন চাল পায়নি বলে দাবি করেন তারা।এছাড়াও চেয়ারম্যান প্রত্যেককে ১০ কেজি করে চালের পরিবর্তে ৭ থেকে ৮ কেজি করে চাল দিয়েছেন।এজন্য আমরা তার শাস্তির দাবী জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছি।এসময় তার বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বক্তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।

তারা আরও বলেন, অনিয়মের খবর পেয়ে ইউএনও মহাদোয় ও পিআইও সাহেব ইউনিয়ন পরিষদে এসে চাল মেপে কম পেয়েছেন।এসময় ইউএনও কোন মন্তব্য না করলেও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম আওয়ামী লীগকে নিয়ে সমালোচনা করে বলেন “এসব আওয়ামী লীগের বাপের চাল” এমন অভিযোগ করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গাজিবুর রহমান।

ভুক্তভোগী ৯নং ওয়ার্ডের সিদ্দিক ও পরেশ তুল্যার ছেলে মামুনুর রশিদ ১০কেজি চালের মধ্যে ৮কেজি চাল পেয়েছেন এবং ৭নং ওয়ার্ডের কটকতোল গ্রামের আব্দুল ছামাদ সাড়ে ৭কেজি চাল পেয়েছেন বলে ভুক্তভোগী নিজেরা জানান।এরকম শত শত মানুষ চাল কম পেয়েছেন বলে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ দাবি করেন।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল বলেন, সরকারি নির্দেশনানুয়ী চাল বিতরণ করা হয়েছে।চাল বিতরনের সময় ইউএনও মহোদয় ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা পরিষদে এসেছিলেন।মিটার দিয়ে মেপে প্রত্যেককে পরিমান ও প্রাপ্যতানুযায়ী চাল দেওয়া হয়।অনিয়ম করার কোন সুযোগ নেই।তবে একটি মহল আমার সুনাম নষ্ট করতে পরিকল্পিত ভাবে মিথ্যা অভিযোগ এনে আমার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, আমি কোন সময় আওয়ামী লীগের বিষয়ে সমালোচনা করিনি।মনগড়া ভাবে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগটি আনা হয়েছে।

এব্যাপারে মান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লায়লা আঞ্জুমান বানুর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

মান্দায় ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ এনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

আপডেট সময় : ০৩:০২:৩১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ এপ্রিল ২০২৩

নওগাঁর মান্দায় বিনামূল্যে ভিজিএফের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ এনে ৯নং তেঁতুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল ও মেম্বারদের বিরুদ্ধে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতারা সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) বিকাল ৫টার সময় তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি গাজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে দলীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে নেতারা অভিযোগ এনে বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল দলীয় তালিকা অনুসরণ না করে মনগড়া ভাবে নিজেদের লোকজনের মাঝে চাল বিতরণ করেছেন।এবারে গত বারের তালিকা অনুযায়ী সাড়ে ৪শত জন চাল পায়নি বলে দাবি করেন তারা।এছাড়াও চেয়ারম্যান প্রত্যেককে ১০ কেজি করে চালের পরিবর্তে ৭ থেকে ৮ কেজি করে চাল দিয়েছেন।এজন্য আমরা তার শাস্তির দাবী জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছি।এসময় তার বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বক্তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।

তারা আরও বলেন, অনিয়মের খবর পেয়ে ইউএনও মহাদোয় ও পিআইও সাহেব ইউনিয়ন পরিষদে এসে চাল মেপে কম পেয়েছেন।এসময় ইউএনও কোন মন্তব্য না করলেও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম আওয়ামী লীগকে নিয়ে সমালোচনা করে বলেন “এসব আওয়ামী লীগের বাপের চাল” এমন অভিযোগ করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গাজিবুর রহমান।

ভুক্তভোগী ৯নং ওয়ার্ডের সিদ্দিক ও পরেশ তুল্যার ছেলে মামুনুর রশিদ ১০কেজি চালের মধ্যে ৮কেজি চাল পেয়েছেন এবং ৭নং ওয়ার্ডের কটকতোল গ্রামের আব্দুল ছামাদ সাড়ে ৭কেজি চাল পেয়েছেন বলে ভুক্তভোগী নিজেরা জানান।এরকম শত শত মানুষ চাল কম পেয়েছেন বলে স্থানীয় নেতৃবৃন্দ দাবি করেন।

এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান কামরুল বলেন, সরকারি নির্দেশনানুয়ী চাল বিতরণ করা হয়েছে।চাল বিতরনের সময় ইউএনও মহোদয় ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা পরিষদে এসেছিলেন।মিটার দিয়ে মেপে প্রত্যেককে পরিমান ও প্রাপ্যতানুযায়ী চাল দেওয়া হয়।অনিয়ম করার কোন সুযোগ নেই।তবে একটি মহল আমার সুনাম নষ্ট করতে পরিকল্পিত ভাবে মিথ্যা অভিযোগ এনে আমার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, আমি কোন সময় আওয়ামী লীগের বিষয়ে সমালোচনা করিনি।মনগড়া ভাবে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগটি আনা হয়েছে।

এব্যাপারে মান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লায়লা আঞ্জুমান বানুর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।